Breaking News

ইউটুবারদের সতর্কতা | youtuber's Aleration | Bngla Mail 21








ইউটুবারদের সতর্কতা



১। কোনো ধরনের পরীক্ষা-নিরীক্ষা (Experiment) নয়।

সতর্কতাঃ কোনো ধরনের পরীক্ষা-নিরীক্ষা (Experiment) করবেন না। ইউটিউবের পলিসি (Policy) কঠোরভাবে মেনে চলার চেষ্টা করুন। ওভার স্মার্ট হওয়ার চেষ্টা করবেন না। ইউটিউবের নিয়মের বাইরে কিছু করলে আপনি আজ না হোক কাল নিশ্চিত ধরা পরবেন। আর আপনার চ্যানেল বিপদের মুখে পড়বে।

২। নিজের অ্যাডসে্ (Ads) ক্লিক নয়।

সতর্কতাঃ নিজের ভিডিও দেখা থেকে বিরত থাকুন। আর ভুলেও নিজের অ্যাডস্ এ ক্লিক করবেন না। ক্লিক করলে আপনার অ্যাডসেন্স একাউন্ট কমপক্ষে ৩০ দিনের সাসপেনশনে (Suspension) চলে যাবে। আর ৬ মাসে ২ বারের বেশি সাসপেনশনে গেলে আপনার একাউন্ট বন্ধ করে দিবে।

৩। বন্ধুর কম্পিউটার দিয়ে নিজের ভিডিও বারবার ভিউ নয়।

সতর্কতাঃ আপনি যদি অন্যের কম্পিউটার দিয়ে আপনার চ্যানেলের ভিডিও বারবার দেখেন এবং অ্যাডসে্ ক্লিক করেন তাহলেও বিপদে পড়বেন। Ads Bombing এর দায়ে আপনার চ্যানেলে Strike চলে আসবে।

৪। কপিরাইট কন্টেন্ট আপলোড নয়।

সতর্কতাঃ অন্যের ভিডিও আপলোড করবেন না। অন্যের ভিডিও ডাউনলোড করে এডিট করে আপলোড করে যদি মনে করেন পার পেয়ে যাবেন, তবে ভুল করবেন। কপিরাইট ভিডিও মানিটাইজ করা যায় না। সুতরাং, কোনো ফায়দা নেই।

৫। ভুয়া ভিডিও টাইটেল নয়।

সতর্কতাঃ আপনার দেওয়া Video Title অথবা Description অথবা Tag এর সাথে আপনার আপলোড করা ভিডিওটির কোনো মিল না থাকলে আপনার ভিডিওতে Strike চলে আসবে। ভিডিও আপলোডের সাথে সাথে হয়ত কিছু হবে না। কিন্ত, একদিন বিপদে পড়ার ভয় থেকেই যাবে।

৬। অশ্লীল ভিডিও আপলোড কে না বলুন।

সতর্কতাঃ ইউটিউব অ্যালগরিদম প্রতিনিয়ত আরও উন্নত করা হচ্ছে। তার ফলে পূর্বে পার পেয়ে যাওয়া অনেক বড় মাপের চ্যানেল সম্প্রতি বন্ধ হয়ে গেছে অশ্লীল শব্দ প্রয়োগ ও ছবি প্রদর্শণের ফলে।

৭। ক্রিয়েটিভ কমন (CC) ভিডিও থেকে দূরে থাকাই ভালো।

সতর্কতাঃ ক্রিয়েটিভ কমন (CC) ভিডিওগুলির ক্ষেত্রে দেখা যায় যে বেশির ভাগ ভিডিও আপলোডের পর ভিডিওতে কপিরাইট স্ট্রাইক চলে আসে। ফলে ভিডিওটা মানিটাইজেশন করা যায় না। আর অনেক বেশি কপিরাইট স্ট্রাইক আপনার চ্যানেলের Good Standing এর জন্য হুমকিস্বরুপ।

৮। ফেয়ার ইউজ (Fair Use) করার চেষ্টা না করাই ভালো

সতর্কতাঃ ফেয়ার ইউজ (Fair Use) পলিসি পড়ে আপনার মনে হতে পারে ভালোই তো; অন্যের কন্টেন্ট কিছুটা ব্যবহার করা যেতেই পারে। হয়ত আপনি ফেয়ার ইউজের পলিসি মেনেই ভিডিও বানালেন কিন্তু তারপরও স্ট্রাইক চলে আসলো – এমনটা হতেই পারে। কোর্টে গেলে হয়ত আপনি জিতে যেতে পারেন। কিন্তু ছোট একটা চ্যানেলের সামান্য একটা ভিডিও নিয়ে কে আর কোর্টের ঝামেলায় জড়িয়ে পড়তে চায়! তাই ফেয়ার ইউজ (Fair Use) এর চিন্তা না করাই ভালো।

৯। নিয়মিত মেইল (Mail) চেক করুন।

সতর্কতাঃ নিয়মিত মেইল চেক করা একটা ভালো অভ্যাস। ইউটিউব বিষয়ক বিভিন্ন টিপস্ এবং চ্যানেল সংক্রান্ত বিভিন্ন নোটিফিকেশন ইউটিউব থেকে আপনার দেওয়া মেইল অ্যাড্রেসে সয়ংক্রিয়ভাবে পৌঁছে যায়।

১০। অস্থির হয়ে যাবেন না। ধৈর্য্য ধরে কাজ করে যান।

সতর্কতাঃ অনেকে ইউটিউব চ্যানেল খুলে মাসখানেকের মাঝেই ধৈর্য্য হারিয়ে ফেলেন। হয়ত বলে বসেন, “ধুর, এসব ছাই-পাশ দিয়ে কিছু হবে না। টাকা ইনকাম করা কি এতই সোজা!”। এমনটা হলে নিজেকে জিজ্ঞাসা করুন সর্বশেষ কোন কাজটা আপনি ধৈর্য্য ধরে শেষ করেছেন? আশা করি উত্তরটা নিজেই পেয়ে যাবেন। আর হ্যাঁ, অনলাইনে টাকা আয় করা খুবই সহজ; তবে একটু সাহস, কিছুটা ধৈর্য্য, আর পরিশ্রমের মানসিকতা প্রয়োজন।




No comments

Thanks Bro